নাগরিক প্রতিবেদন

হারানো মোবাইল খুঁজে পাওয়ার জাদুকর

  প্রতিনিধি ২৩ এপ্রিল ২০২৩ , ৭:১১:৫০

শেয়ার করুন

যেকোনো সময় আমাদের ফোন হারিয়ে যেতে পারে। চুরি বা ছিনতাইয়ের মতো অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটতে পারে। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে অনেক সময় ভোগান্তির মুখে পড়তে হয়। যেমন: চুরি বা ছিনতাই হওয়া মোবাইল ফোনটি কখনো কখনো অপরাধমূলক কাজে ব্যবহৃত হতে পারে। সে ক্ষেত্রে মোবাইল ও সিমের রেজিস্ট্রি মতে এর প্রকৃত মালিক গ্রেপ্তার বা হয়রানির স্বীকার হতে পারেন। তাই ফোন হারিয়ে গেলে যা করতে হবে জেনে নিন এখনই।

মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে বা ছিনতাই হলে প্রথমেই আপনার অপারেটর সার্ভিসে ফোন করে সিম লক করে দিতে হবে।

এর পর করতে হবে সাধারণ ডায়েরি। ফোন যেখানে হারিয়েছে তার নিকটস্থ থানায় উপস্থিত হয়ে সাধারণ ডায়েরি করতে পারবেন। এ সময় ফোনের আইএমইআই নম্বর, ফোনে ব্যবহৃত সিমের নম্বর প্রভৃতি উল্লেখ করে করতে হবে।

সাধারণ ডায়েরি করার সময় ফোন ক্রয়ের রসিদ, সিম রেজিস্ট্রেশন ডকুমেন্ট ইত্যাদির কপি দিতে হবে। মূল কপি নিজের কাছে যত্ন সহকারে রেখে দিবেন।
পুলিশ জনগণের বন্ধু আপনি চাইলেই আপনার হারানো মোবাইলের ফিরে পেতে পারেন।অনেকেই তাদের হারানো ফোন ফিরে পেয়েছে।এই পুলিশ বাহিনীর সহযোগিতায়।

বিগত কয়েক বছরের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তির সুবিধা নিয়ে বাংলাদেশ প্রচুর উন্নতি সাধন করেছে।এটা অকপটে স্বীকার করতে হবে বৈকি।ডিজিটাল বাংলাদেশে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া মোবাইল উদ্ধার করে প্রতিনিয়ত জন-সাধারণের মুখে হাসি ফোটানোর চেষ্টা অব্যহত রাখছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মোহাম্মদপুর থানার পুলিশ।আর জন-সাধারণের মুখে হাসি ফোটানোর কাজটি যার নেতৃত্বে হচ্ছে তিনি হচ্ছেন মোহাম্মদপুর থানার স্বনামধন্য অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ।

অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ এর সার্বিক তত্ত্বাবধান ও নির্দেশনায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোহাম্মদপুর থানার জনপ্রিয় এএসআই মোঃ মোশারফ হোসেন এর আপ্রাণ চেষ্টায় হারানো মোবাইল ফোন নিয়মিত উদ্ধার করে মোবাইলের প্রকৃত মালিক কে বুঝিয়ে দিচ্ছেন।


তিনি যাদের ফোন ফিরিয়ে দিয়েন তাদের মধ্যে তার এক বন্ধু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেন-
বন্ধু মোশাররফ ও মোহাম্মদপুর থানা কে অনেক ধন্যবাদ। যে আমার অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই দুইটা ফোন উদ্ধার করে দিয়েছে অনেক অনেক ধন্যবাদ বন্ধু মোশারফ কে এভাবেই যার যার অবস্থান থেকে এতোটুকু সহযোগিতা করলে আমরা অনেক দূর এগিয়ে যাব।

গল্পের অন্তরালে
আমারই এলাকার একটা ছোট ভাই ও একটা জিডি করছে অনেকদিন হলো তো ও আমাকে ফোন দিয়ে বলল ভাই আমার একটা ফোন কিছুদিন আগে হারিয়ে গেছে উদ্ধার করতে পারছি না আপনি একটু চেষ্টা করে দেখবেন ঠিক আছে জিডি কপিটা দাও সাথে সাথেই কপিটা দিল আর বন্ধু মোশাররফকে দিলাম ও কয়েক দিনের চেষ্টাই ফোনটা উদ্ধার করে আমাকে বলল দোস্ত তোমার ফোনটা পাওয়া গেছে। এই একটা
আমাদের মসজিদের ইমাম সাহেব ওযু করতে যেয়ে মোবাইলটা ওয়ালের উপর রেখে আসছিলো ওযু করে যাওয়ার পরে মোবাইলটা আর পায় না উনি মাগুরা থানাতে একটা জিডি করছিল তো আমি তখন ছুটিতে ছিলাম যেহেতু পুলিশের চাকরি করি উনি আমার কাছে আসছিলেন তবে তখন বলছিলাম জিডি করছেন থানা দেখুক পেয়ে যাবেন ২০২১ সাল থেকে আজ পর্যন্ত উদ্ধার হয়নি তো আমার হঠাৎ মনে পড়ল হুজুরের কথা বন্ধু মোশারফকে জিডি কপিটা পাঠালাম রাত্রে সকালে বন্ধু মোশাররফ আমাকে ফোন দিয়ে বলতেছে ওই ফোনটা তোদের এলাকাতেই আছে আমি সাথে সাথে হুজুরকে জানালাম হুজুর খুশিতে আত্মহারা আমি সামান্য বেতনে ইমামতি করি আমার ফোনটা হারানোর পরে যে কত কষ্ট পেয়েছি তা আমি বলে বোঝাতে পারবো না আপনাদের পুলিশকে অনেক ধন্যবাদ সত্যিই সে লোকটা অনেক হ্যাপি হয়েছে বলে বোঝানো যাবে না ধন্যবাদ তোমাকে।


এমন অসংখ্য মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে নিজের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে এএসআই মোশাররফ হোসেন।
এই তো কিছু দিন আগে চলচ্চিত্র অভিনেতা সুশান্ত তার মোবাইল কক্সবাজার শুটিং এ হারিয়ে গেলে তা তিনি উদ্ধার করে দেন।

এ বিষয়ে মোশাররফ হোসেন ড্রয়ার খুলে বলেন ১৩/০৩/২০২৩ ইং উদ্ধারকৃত মোবাইল।একজন মানুষ নিজের টাকায় মোবাইল ক্রয় করে অযথায় মালমলার ঘানি কেন টানবে সুতরাং সাবধান পুরাতন মোবাইল কেনার আগে অবশ্যই বক্স চেয়ে এবং Imei মিলিয়ে তবেই যেনো কিনেন।আর নয় তো বড় ধরনের বিপদেও পরতে পারেন।

তার মোবাইল এ একটি ছবি দেখিয়ে বলে স্যার একজন ডাক্তার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত আছেন উনার হারিয়ে যাওয়া one plus 8 মোবাইলটা উদ্ধার পূর্বক বুঝিয়ে দিয়েছিলাম।

একজন ভদ্র মহিলা তার ফোনটা হাতে পেয়ে মহাখুশি, সে প্রথমে বিশ্বাস করেনি হারানো মোবাইল কখনো পুলিশ উদ্ধার করে দিবে।নিজের মোবাইলটা হাতে পেয়ে আবেগে কেঁদে ফেলেছেন।

এএসআই মোশাররফ বলেন আপনার মোবাইল হারিয়ে গেলে এখন খুঁজে পাওয়া খুব কঠিন কিছু নয়।তথ্য প্রযুক্তির এই দিনে এটা কোন সমস্যা নয়।আমরা জনগণের সেবায় সব সময় সক্রিয়।

শুধু মোহাম্মদপুর থানা এলাকা নয় হারানো মোবাইল ফোন খুঁজে পেতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন ভুক্তভোগী অনেকেই।

এমন চ্যালেঞ্জিং কাজ করতে পেরে নিজেকে বাংলাদেশ পুলিশের একজন গর্বিত পুলিশ কর্মকর্তা মনে করেন বলেও জানান তিনি।


শেয়ার করুন