খেলাধূলা

টাকার জন্যই দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটকে বিদায় ডি ককের!

  প্রতিনিধি ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ , ১২:২০:১৬

শেয়ার করুন

 

 

সেপ্টেম্বরের শুরুতে বিশ্বকাপের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা প্রাথমিক স্কোয়াড জানিয়ে দেওয়ার পরপরই ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন উইকেটকিপার ব্যাটার কুইন্টন ডি কক। তিনি জানান, ভারতের মাটিতে আসন্ন বিশ্বকাপই হতে চলেছে ওয়ানডে ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সিতে তার শেষ টুর্নামেন্ট।

এর আগে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে হঠাৎ করেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছিলেন ডি কক। পরিবারের সঙ্গে আরও বেশি সময় কাটাতে চান বলেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। তবে তার ওয়ানডে খেলা ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে এই মুহূর্তে সরগরম ক্রিকেটমহল। ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলার জন্য দেশের জার্সি তুলে রাখতে চলেছেন তিনি, এমন কথাও বলা হচ্ছে।

বিশ্বকাপের পরেই ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠে গুরুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই সিরিজে কুইন্টন ডি কককে দলে পাওয়া নিয়ে সংশয় ছিল। কেননা ডিসেম্বরে মেলবোর্ন রেনেগেডসের হয়ে বিগ ব্যাশ লিগ খেলার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ডি কক। প্রোটিয়া বোর্ড এই বিষয়ে কুইন্টনের সঙ্গে আলোচনায় বসবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিল। তবে ডি কক অবসর ঘোষণা করায় তার আর প্রয়োজন হবে না।

টাকার জন্য দেশের ক্রিকেট ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেননি ডি ককও। বাস্তববাদী প্রোটিয়া এই উইকেটকিপার ব্যাটার স্পষ্ট জানিয়েছেন যে, ক্যারিয়ারের শেষ প্রান্তে এসে সব ক্রিকেটারই চায় যত বেশি সম্ভব অর্থ উপর্জন করে নেওয়ার। ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে প্রচুর টাকার হাতছানি রয়েছে এবং তিনি সেই লক্ষ্যেই ওয়ানডে খেলা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে তার মানে এই নয় যে, তিনি দেশের প্রতি অনুগত নন। জাতীয় দলের প্রতি আনুগত্য না থাকলে ৫ বছর আগেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছেড়ে ঘরোয়া টি-২০ লিগ খেলে বেড়াতেন বলে দাবি তার।

ডি কক বলেন, ‘আমি এখানে বসে অস্বীকার করব না, এটার (ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট) প্রভাব নেই। এটি আমাকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করেছে। আমি বিগত ১০-১১ বছর দলের সঙ্গে ছিলাম এবং দলের প্রতি নিবেদিত ছিলাম। আমি মনে করি এই সময়টায় সত্যিই আমি ভালো করেছি। আমার ক্যারিয়ারে প্রোটিয়া ব্যাজটাকে খুব ভালোভাবে উপস্থাপন করেছি।’

কক আরও যোগ করেন, ‘আমি অস্বীকার করব না টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রচুর অর্থ রয়েছে। আপনার ক্যারিয়ারের শেষ সময়টায় যেকোনো ক্রিকেটারই সর্বোচ্চ উপার্জনের দিকে ঝুঁকবে। যেকোনো সাধারণ মানুষও এই দিকেই দৌড়াবে। আমি দলের প্রতি ভালোবাসা না থাকত তাহলে পাঁচ বছর আগেই এই ক্যারিয়ারটা বেছে নিতাম। আমার বয়স হচ্ছে, এটাই সময়।’

ডি কক টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন আরও আগেই। সে প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার মনে আছে টেস্ট ক্যারিয়ারের শেষের দিকে আমি লড়াই করছিলাম। আমি মাত্র ৫০টি (আসলে ৫৪) টেস্ট খেলেছি। আমার জীবনে আমি যাদের বিশ্বাস করি, তাদের সঙ্গে আলাপ করেছি। তাঁরা বলেছিল, যদিও তুমি চাও তাহলে অবসর নিয়ে নাও। এটাতে কোনো লজ্জা নেই। তাহলে বাকি ফরম্যাটগুলোতেও ফোকাস করতে পারবে।’

 


শেয়ার করুন