ইসলাম

আমাদের প্রতিদিন তওবা করা উচিত।

  প্রতিনিধি ১৭ অক্টোবর ২০২৩ , ২:২৯:২০

শেয়ার করুন

আমরা প্রতিদিনই কম-বেশি জেনে বুঝে বা না জেনে অসংখ্য পাপ করে থাকি। যেমন আমরা হয়ত রাস্তায় চলার সময় চোখকে সংযত রাখতে পারি না। আবার হয়ত কারো সাথে মিথ্যা বলে থাকি। কারো মনে কষ্ট দিয়ে ফেলি। অথবা রাস্তায় অন্য মানুষের কষ্ট হয় এমন কোনো কাজ করি, যেমন রাস্তায় ময়লা ফেলা বা এমন ভাবে চলাচল করা যাতে অন্য পথচারী বা যানবাহন আরোহীরা কষ্টে পড়েন। আবার অনেক ভাইয়েরাই হয়ত কাপড় পরেন টাখনুর নিচে বা দাড়ি কেটে ছোট করেন, বা ধুমপান করেন। যা কঠিনতম গুনাহ।

আমরা কি এসব গুনাহ থেকে কখনো আল্লাহর কাছে মাফ চাই? কখনো কি আমরা ঘুমানোর আগে চিন্তা করি আজ সারা দিন কী কী পাপ করেছি? আমরা কি আমাদের পাপগুলোকে আদৌ পাপ মনে করি?

আল্লাহ তায়ালার কাছে গুনাহের জন্য মাফ চাইলে তিনি অত্যন্ত খুশি হন। আমরা আল্লাহর কাছে নিয়মিত ক্ষমা প্রার্থনা করে আর পরবর্তীতে পাপ না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আল্লাহর প্রিয় বান্দায় পরিণত হতে পারি। নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাদেরকে ক্ষমা করে দিবেন। যে পাপগুলো মানুষকের অধিকারের সাথে সম্পৃক্ত। সেগুলোর জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির থেকে মাফ চেয়ে নিতে হবে। যেমন কাউকে কোনো কথা বা আচরনের দ্বারা কষ্ট দেয়া। প্রতিবেশীদেরকে বিভিন্ন ভাবে কষ্ট দেয়া। ওজনে কম দেয়া, পণ্যে ভেজাল মিশানো ইত্যাদি। এগুলোর জন্য আল্লাহর কাছে মাফ চাওয়ার পাশাপাশি ঐ ব্যক্তির থেকেও মাফ নিতে হবে।

যখনই হাতে সময় পাওয়া যায় আল্লাহর কাছে ক্ষমা চেয়ে পড়তে থাকা উচিত “আসতাগফিরুল্লাহ”। ফরজ নামাজের পরে, তাহাজ্জুদের সময়ে সহ দিনে রাতের যে কোনো সময়েই আমরা মনে মনে আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করতে পারি। তওবা করার জন্য নির্দিষ্ট সময়ে, নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে, নির্দিষ্ট দুআ পড়া জরুরি নয়। তওবা করার জন্য কোনো হুজুর বা পীর সাহেবের কাছে যাওয়া জরুরি নয়। নিজের পাপের কথা স্বীকার করে, ঐ পাপ না করার ওয়াদার কথা মনে মনে একনিষ্ঠ ভাবে আল্লাহকে বলাই যথেষ্ট! নিয়মিত ক্ষমাপ্রার্থনা ও দুআ করার মাধ্যমে আমরা প্রত্যেকেই আল্লাহর ওলী হয়ে যেতে পারি। আল্লাহ আমাদের সকলকে তার ওলী ও মুত্তাকী বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত করুন। আমীন।

আবূ হুরাইরা (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ আমি রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে বলতে শুনেছি যে,
‘‘আল্লাহর শপথ! আমি প্রত্যহ আল্লাহর কাছে সত্তর বারেরও বেশি ইস্তিগফার [ক্ষমাপ্রার্থনা] ও তাওবাহ করে থাকি।’’
(সহীহুল বুখারী ৬৩০৭, তিরমিযী ৩২৫৯, ইবনু মাজাহ ৩৮৬১, আহমাদ ৭৭৩৪, ৮২৮৮, ৯৫১৫)

আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ
বান্দা যখন আল্লাহর কাছে তাওবাহ করে তখন আল্লাহ ঐ লোকের চেয়েও বেশি আনন্দিত হন, যে মরুভূমিতে নিজ সওয়ারীর উপর আরোহিত ছিল। তারপর সাওয়ারীটি তার হতে হারিয়ে যায়। আর তার উপর ছিল তার খাদ্য ও পানীয়। এরপর নিরাশ হয়ে সে একটি গাছের ছায়ায় এসে আরাম করে এবং তার উটটি সম্বন্ধে সম্পূর্ণরূপে নিরাশ হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় হঠাৎ উটটি তার কাছে এসে দাঁড়ায়। অমনিই সে তার লাগাম ধরে ফেলে। এরপর সে আনন্দে আত্মহারা হয়ে বলে উঠে, হে আল্লাহ! তুমি আমার বান্দা, আমি তোমার রব। আনন্দে আত্মহারা হয়ে সে ভুল করে ফেলেছে। (ই.ফা. ৬৭০৮, ই.সে. ৬৭৬৩)।

 


শেয়ার করুন

আরও খবর

Sponsered content