অন-লাইন

বিএনপি অফিসে তালা আ’লীগের অফিসে খাওয়ার ধূম

  প্রতিনিধি ১৬ নভেম্বর ২০২৩ , ১০:০৯:৩৫

শেয়ার করুন

জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। নেতাকর্মীরা আসছেন, একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে দিচ্ছেন। এর ঠিক উল্টো চিত্র নয়াপল্টনে। পুলিশি কড়াকড়িতে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের আশপাশে ভিড়তে পারছে না নেতাকর্মীরা। কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলছে। পুরো এলাকাজুড়েই সুনসান নীরবতা। পার্টি অফিসের সামনের সড়কে যান চলাচলও সীমিত। বিএনপি নেতারা বলছেন, গ্রেপ্তারের ভয়ে বিএনপি’র কোনো কার্যালয়ে কেউ যাচ্ছেন না। তবে দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, নেতাকর্মীদের ভিড়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয় মুখর হয়ে আছে। দুপুরে সেখানে খিচুড়ি বিতরণ করা হয়।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানিয়েছেন, তারা শুক্রবার থেকে মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু করবেন। এদিকে বিএনপি’র অবরোধে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ‘শান্তি সমাবেশের’ কথা বলে রাজধানীর মোড়ে মোড়ে অবস্থান নেন। পাশাপাশি দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনেও নেতাকর্মীদের দেখা গেছে। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। তফসিল ঘোষণার পরে নেতাকর্মীদের উপস্থিতি বেড়েছে। আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি আবু আহমদ মন্নাফি, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবিরসহ নগরের শীর্ষ নেতাদের অবস্থান কর্মসূচিতে দেখা যায়। কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে যারা অংশ নিয়েছেন, তাদের জন্য খাবারের আয়োজন করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। একটি ‘পিকআপ ভ্যানে’ বড় বড় পাতিলে করে খিচুড়ি আনা হয়। সারিতে দাঁড়িয়ে প্লাস্টিকের থালায় খাবার নিতে দেখা যায় নেতাকর্মীদের। নেতাকর্মীদের সুশৃঙ্খলভাবে খাবার গ্রহণ করতে নির্দেশনা দিচ্ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক আলিম ব্যাপারী। আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে ও আশপাশে পুলিশের উপস্থিতি দেখা যায়নি।
বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নয়াপল্টনে গিয়ে দেখা যায়, বিএনপি কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলছে। কার্যালয়ের সামনের সড়কে সতর্ক অবস্থান নিয়ে আছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। ২৮শে অক্টোবরের পর আলোচনায় অংশ নেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে দেয়া নির্বাচন কমিশনের চিঠি ফটকের ভেতরের অংশের একটি প্লাস্টিকের চেয়ারে পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেখানে আরও কিছু চিঠি ছিল। সামনের সড়কে বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে দেখা যায়, বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে কোনো যানবাহনকে দাঁড়াতে দিচ্ছে না পুলিশ। বিএনপি’র কার্যালয় লাগোয়া হোটেল ভিক্টোরির নিরাপত্তাকর্মী আবদুল আহাদ বলেন, কার্যালয়ে বিএনপি’র কেউ আসেন না। শুধু নয়াপল্টন নয় বিএনপি’র গুলশান কার্যালয়েও লোক সমাগম নেই।


শেয়ার করুন